প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূর থেকে গণিত উৎসবে অংশ নিতে সাতক্ষীরা শহরে এসেছে সুন্দরবনঘেঁষা শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নের মল্লিকপাড়ার দুই ভাই। মধ্য কৈখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র তৌফিক ইমরোজ ও কৈখালী এসআর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র রাকিবুল ইসলাম। গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় ভাত খেয়ে সাতক্ষীরার উদ্দেশে রওনা দিয়ে বিকেল পাঁচটায় সাতক্ষীরা প্রথম আলো অফিসে পৌঁছেছে। আলাপচারিতায় তারা জানায়, তাদের স্বপ্ন গণিত অলিম্পিয়াডে বিদেশে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করা।

 

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের পদচারণে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ মুখর হয়ে ওঠে। ছবি: প্রথম আলো

 

আজ রোববার সকালে সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের গণিত অলিম্পিয়াডে অংশ নেয় তারা।

কুয়াশায় ঢাকা শীতের সকাল। ঘড়ির কাঁটায় সোয়া আটটা। বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের পদচারণে মুখর হয়ে ওঠে। দূরদূরান্ত থেকে আসতে থাকে শিক্ষার্থীরা।

বন্ধুসভার সদস্যদের পরিবেশনায় জাতীয় সংগীতের সঙ্গে উত্তোলন করা হয় জাতীয় পতাকা, জাতীয় গণিত উৎসব ও গণিত অলিম্পিয়াডের পতাকা। পরে বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে উৎসবের উদ্বোধন করা হয়।

আজ সাতক্ষীরা জেলার সাতটা উপজেলার ৪০টি বিদ্যালয় ও পাঁচটি কলেজের ৩২২ ছাত্রছাত্রী প্রাথমিক, নিম্নমাধ্যমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক—চার দলে আঞ্চলিক গণিত অলিম্পিয়াডে অংশ নেয়।

বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে উৎসবের উদ্বোধন করা হয়। ছবি: প্রথম আলো

সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার মো. সাজ্জাদুর রহমান বলেন, গণিত উৎসবে যারা অংশ নিয়েছে, তারা অন্যদের চেয়ে এক ধাপ এগিয়ে গেল। এ পরীক্ষা শিক্ষার্থীদের আরও বুদ্ধিদীপ্ত হয়ে গড়ে উঠতে সাহায্য করে। প্রথম আলো তরুণ প্রজন্মকে গণিত চর্চার মাধ্যমে শাণিত করে যাচ্ছে।

সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এম এ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, প্রথম আলো ও ডাচ-বাংলা ব্যাংকের এ আয়োজন প্রশংসার দাবি রাখে। প্রথম আলো পত্রিকা খবর এসব জায়গায় সীমাবদ্ধ রাখেনি। তারা নানা সামাজিক কর্মকাণ্ড চালিয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তারা শিক্ষার্থীদের বুদ্ধিদীপ্ত জ্ঞানচর্চায় দীর্ঘদিন ধরে ভূমিকা রাখছে।

ডাচ-বাংলা ব্যাংকের সাতক্ষীরা শাখার নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ লিমন আলী বলেন, এ শীতের সকালে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে ছোট ছোট শিশুর অংশগ্রহণ প্রমাণ করে গণিত অলিম্পিয়াড সাড়া জাগিয়েছে।

ডাচ-বাংলা ব্যাংকের পৃষ্ঠপোষকতা ও প্রথম আলোর ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি এ উৎসবের আয়োজন করেছে। এতে সহযোগিতা করছে প্রথম আলো বন্ধুসভা।