উৎসব শুরু হবে সকাল নয়টায়। কিন্তু আটটার আগ থেকেই শিক্ষার্থীরা আসতে থাকে টাঙ্গাইলের বিবেকানন্দ হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজে। সাড়ে আটটার মধ্যে মাঠ ভরে যায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকে। আজ বুধবার টাঙ্গাইলে ডাচ্‌-বাংলা ব্যাংক-প্রথম আলো গণিত উৎসবে এমন উৎসাহ দেখা গেছে সবার মধ্যে।

টাঙ্গাইল বন্ধুসভার সদস্যদের জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে উৎসব শুরু হয়। জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করেন বিবেকানন্দ হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ আনন্দ মোহন দে। এ সময় আন্তর্জাতিক গণিত উৎসবের পতাকা উত্তোলন করেন মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান মতিউর রহমান এবং জাতীয় গণিত উৎসবের পতাকা উত্তোলন করেন ডাচ্-বাংলা ব্যাংক টাঙ্গাইল শাখার ব্যবস্থাপক হাবিবুর রহমান।

উদ্বোধন ঘোষণা করে আনন্দ মোহন দে বলেন, জীবনের সব ক্ষেত্রেই রয়েছে গণিত। গণিত ছাড়া কিছুই করার উপায় নেই। তাই সবাইকে গণিত বুঝতে হবে। গণিত নিয়ে স্বপ্ন দেখতে হবে।

 

উৎসাহ নিয়ে টাঙ্গাইলের বিবেকানন্দ হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজে আয়োজিত গণিত উৎসবে শিক্ষার্থীরা। ছবি: প্রথম আলো

 

পরীক্ষার হলে বসে কঠিন সব প্রশ্নের উত্তর সহজে দিয়ে দিচ্ছে শিক্ষার্থীরা। ছবি: রয়টার্স

মতিউর রহমান বলেন, গণিতকে ভয় করলে চলবে না। জীবনে সফল হতে হলে গণিত চর্চা করতে হবে। গণিত বুঝতে হবে।

হাবিবুর রহমান বলেন, গণিত উৎসব শিক্ষার্থীদের গণিতের প্রতি আগ্রহী করে তুলতে ভূমিকা রাখছে। শিক্ষার্থীদের কাছে গণিত এখন ভয়ের বিষয় নয়। উৎসবের বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

উৎসবে টাঙ্গাইলের ২৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ৩০০ শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে।