জামিলুর রেজা চৌধুরী


জামিলুর রেজা চৌধুরী
সভাপতি, বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি
আমরা অত্যন্ত আনন্দিত যে চতুর্দশ বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের আয়োজন শুরু হয়েছে। এবারও দেশের ২৪টি জেলায় আঞ্চলিক পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। আঞ্চলিক পর্বে সারা দেশের হাজারো শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শিক্ষকেরা অংশ নেবে। আর সব অঞ্চলের বিজয়ীদের নিয়ে ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় উৎসব। জাতীয় উৎসবে যারা ভালো করবে, সেখান থেকে কয়েক ধাপে বাছাই করে নির্বাচন করবে বাংলাদেশ গণিত দল, যারা অংশ নেবে হংকংয়ে অনুষ্ঠেয় ৫৭তম আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে (আইএমও)। আমরা ধারাবাহিকভাবে কয়েক বছর ধরে আইএমওতে উন্নতি করছি। গত বছর ছিল আমাদের গণিত দলের সবচেয়ে ভালো ফল। আমার আশা করছি, এ বছরও আঞ্চলিক গণিত উৎসবের মাধ্যমে সারা দেশের মেধাবী ছাত্ররা অংশ নেবে। যেখান থেকে আমরা খুঁজে পাব আমাদের সেরা খুদে গণিতবিদদের, আগামী দিনের গণিতবিদদের। যারা আইএমওতে অংশ নিয়ে আরও ভালো ফলাফলের মাধ্যমে দেশের জন্য অনেক গৌরব বয়ে আনবে। সব অংশগ্রহণকারীর জন্য রইল শুভকামনা।

 

কে এস তাবরেজ

কে এস তাবরেজ
ব্যবস্থাপনা পরিচালক,
ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড
বছর ঘুরে আবারও শুরু হয়েছে গণিত উৎসব ২০১৬। তাই আমি অনেক আনন্দিত। এই উৎসব শুরু হলে শিক্ষার্থীদের মতো আমিও অনেক খুশি হই। সকাল থেকে শিক্ষার্থীরা উৎসবে অংশ নিতে ভেন্যুগুলোতে হাজির হতে থাকে, সারা দিন গণিতের সঙ্গে থাকে। এই উৎসবের জন্য এখন শিক্ষার্থীরা অপেক্ষা করে সারা বছর। এবার ২৪টি গণিত উৎসব আয়োজন করা হচ্ছে। এ উৎসবে এখন শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শিক্ষকেরা দারুণভাবে যুক্ত হয়েছে। আর এই উৎসবকে সুসংগঠিতভাবে সম্পন্ন করছে একদল স্বেচ্ছাসেবী। ধন্যবাদ সবাইকে। আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে আমাদের শিক্ষার্থীরা ধারাবাহিকভাবে সাফল্য লাভ করছে। আমাদের গণিত দল এ বছর আইএমওতে দক্ষিণ এশিয়ায় শীর্ষস্থান অর্জন করে প্রমাণ করেছে, আমাদের দেশের ছেলেমেয়েদের মেধা ও দক্ষতা বিশ্বমানের। আমার বিশ্বাস, একসময় আমাদের শিক্ষার্থীরা সারা দুনিয়ার প্রতিযোগীদের মধ্যে শীর্ষে উঠে আসবে। বরাবরের মতো এবারও ডাচ্-বাংলা ব্যাংক গণিত উৎসবের সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছে। ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় বিগত বছরগুলোর মতো এবারের গণিত উৎসবের সব আয়োজন সফল হবে বলে আমি আশাবাদী। গণিত উৎসবে অংশগ্রহণকারী সব শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক এবং আয়োজকদের জন্য ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

 

আব্দুল কাইয়ুম

আব্দুল কাইয়ুম
সহযোগী সম্পাদক, প্রথম আলো

গণিত উৎসবের প্রেরণা দেশের তরুণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে নতুন প্রাণের সঞ্চার ঘটায় প্রতিবছর। এবার আমাদের সামনে নতুন চ্যালেঞ্জ। গত বছরের চেয়েও বড় সাফল্য আনতে হবে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে আমাদের উৎকর্ষ বাড়াতে হবে। আইএমওতে আমরা দক্ষিণ এশিয়ায় সেরা ফল করেছি। এবার আমাদের লক্ষ্য হবে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় সেরা ফল অর্জন। প্রায় দেড় দশক ধরে লালিত স্বপ্ন পূরণের সময় এসেছে এখন, স্বর্ণপদক জয় করতে হবে। এই দুটি চ্যালেঞ্জ অতিক্রমের প্রেরণাই হোক এবারের গণিত উৎসব ও অলিম্পিয়াডের মূল চালিকাশক্তি। আমাদের তরুণ শিক্ষার্থীরা সৃজনশীলতা ও মেধায় অনেক এগিয়ে। কিন্তু সুযোগ ও চর্চার অভাবে অনেক প্রতিভা অনাবিষ্কৃত থেকে যায়। গণিত উৎসব ও অলিম্পিয়াড তাদের সামনে নিয়ে আসে। শুরু থেকেই প্রথম আলো এ উৎসবের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। আমাদের দৃঢ়বিশ্বাস, আমাদের তরুণেরা জ্ঞান-বিজ্ঞানে আরও এগিয়ে যাবে, আরও বড় বিজয় নিয়ে আসবে। আমরা সেদিকেই চেয়ে আছি।