বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির সহযোগিতায় গাংনী গণিত পরিবার এর উদ্যোগে গত ৩১ মে থেকে ২ জুন মেহেরপুরের গাংনীতে অনুষ্ঠিত হয়েছে সামার ম্যাথ ম্যানিয়া-২০১৯। গাংনী সরকারি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হওয়া এই ম্যাথ ম্যানিয়ায় মেহেরপুর জেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ৩য় থেকে ১০ম শ্রেণীর ১১০ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। তিন ক্যাটাগরিতে ভাগ হয়ে শিক্ষার্থীরা এই কর্মশালায় প্রতিদিন ১:৩০ ঘন্টার দুইটি করে সেশন করে। কর্মশালায় নাম্বার থিওরি, জ্যামিতি, বক্স প্রিন্সিপাল, পিজিওন হোল প্রিন্সিপাল, কম্বিনেটরিক্স বিষয়ে সেশন নেওয়া হয়। প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের জন্য ছিল ‘আনন্দে গণিত শেখার কৌশল’ এর বিশেষ সেশন। সেখানে শ্রেণিকক্ষ ও শ্রেণিকক্ষের বাইরে গিয়ে খেলার ছলে গণিতের বিষয়গুলো সহজে শিক্ষালাভ করে শিক্ষার্থীরা।

কর্মশালার সেশনগুলো পরিচালনা করেন বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড এর ক্লাব সমন্বয়কারী ও একাডেমিক সদস্য আবির শাফী বিন্দু, একডেমিক সদস্য বোরহান কবির খোকন, মোঃ আক্তারউজ্জামান রানা, মুনিম হাসান সাফা ও তাসনোভা মুর্শিদ। গাংনী গণিত পরিবারের নিজস্ব প্রশিক্ষকগণের মধ্যে সাবেক পরিচালক আল আমিন আশিক সহ শাহরিয়ার নাইম শাইখ, আমিরুল ইসলাম সোহাগ, আব্দুল্লাহ আল গালিব, তাসনিম লিমা, মুমতাহিনা মুগ্ধ , ফারিয়া আশরাফ বৈশাখী, চন্দ্র, প্রতীক, আদিব ও অমি সেশন পরিচালনা করেন। তিন ক্যাটাগরিতে তিনদিনে মোট ১৮ টি সেশন অনুষ্ঠিত হয়।
বিদ্যালয়গুলোতে ঈদুল ফিতরের ছুটি চলাকালেও গাংনী গণিত পরিবারের এই কর্মশালায় ছিল শিক্ষার্থীদের উপচে পড়া ভিড়। অনেকটা ঈদের আমেজেই শিক্ষার্থীরা এই কর্মশালায় অংশগ্রহণ করে। শিক্ষার্থীরা গণিতের নতুন নতুন কৌশল সম্পর্কে জানতে পারে এবং গণিতকে ভয় না পেয়ে জয় করার প্রত্যয় নেয়। গণিত মুখস্থ না করে বরং আনন্দের সাথে গণিতের সমস্যাগুলো সমাধানের শপথ নেয় শিক্ষার্থীরা।
শেষদিনে সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সামার ম্যাথ ম্যানিয়ার আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি করা হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে গাংনী গণিত পরিবারের বর্তমান ও সাবেক সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন। ‘সামার ম্যাথ ম্যানিয়া’ সফল করার লক্ষ্যে গাংনী গণিত পরিবারের সাধারণ সম্পাদক সাইফ হাসান কৌশিক, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তারেক আল মামুন সহ মোঃ নুরুজ্জামান গালিব, এজাজ আহমেদ সুইট, মাহবুব হাসান তন্ময়, জুবায়ের সাকিব বাপ্পি, শারমিন হোসেন সহ অন্যান্য সদস্যরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে। সামনের আঞ্চলিক ও জাতীয় গণিত উৎসবে ভালো করার প্রত্যয় নিয়ে ‘সামার ম্যাথ ম্যানিয়া’ থেকে ফিরে যায় শিক্ষার্থীরা।