About Me

গণিত অলিম্পিয়াড নিয়ে বহুল জিজ্ঞাসিত প্রশ্নের উত্তরসমূহ
Frequently Asked Questions

বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড বা গণিত উৎসব কী?
বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের গাণিতিক মেধার উৎকর্ষ বৃদ্ধি এবং আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের (আইএমও) জন্য বাংলাদেশ দল নির্বাচনের লক্ষ্যে দেশব্যাপী গণিত অলিম্পিয়াড আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ গণিত উৎসব আয়োজন করে কারা?
উত্তর: বাংলাদেশ গণিত উৎসবের আয়োজক বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি। আয়োজনের পৃষ্ঠপোষক ডাচ-বাংলা ব্যাংক এবং সার্বিক ব্যবস্থাপনায় প্রথম আলো।

গণিত অলিম্পিয়াড কী কী ধাপে অনুষ্ঠিত হবে এবং আয়োজনের দিক থেকে নতুন কী পরিবর্তন আনা হয়েছে?
উত্তর: ২০১৯ সালে আয়োজনের দিক দিয়ে একটু পরিবর্তন আনা হয়েছে।এবার থেকে মূলত তিন ধাপে অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে। বাছাই অলিম্পিয়াড নামে নতুন একটি লেয়ার যুক্ত করা হয়েছে। বাছাই অলিম্পিয়াডে পর আঞ্চলিক গণিত উৎসব, তারপর জাতীয় গণিত উৎসব।প্রথমে ৬৪ জেলায় বাছাই অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে। বাছাইপর্বের জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। বাছাই অলিম্পিয়াড হবে পরীক্ষার মতো।বাছাই অলিম্পিয়াডে প্রশ্ন থাকেব ৭–৮টি। সময় ১ঘন্টা। বাছাইপর্বে কোনো উদ্বোধনী, সমাপনী থাকবে না, মাঠে কোনো অনুষ্ঠান থাকবে না। শিক্ষার্থীরা ভেন্যুতে আসবে, পরীক্ষা দিয়ে আবার চলে যাবে। খাতা দেখে পরবর্তী সপ্তাহের মধ্যে ফলাফল ঘোষণা করো হবে ম্যাথ অলিম্পয়াডের ওয়েবসাইটে (www.matholympiad.org.bd)।৬৪টি বাছাইপর্বের বিজয়ীদের নিয়ে আঞ্চলিক পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। আঞ্চলিক পর্ব হবে বিগত সময়ের মতো দিনব্যাপী। আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডে প্রশ্ন থাকেব ৮–১০টি। সময় ১ ঘন্টা ১৫ঘন্টা। আঞ্চলিক পর্বের বিজয়ীদের নিয়ে ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় পর্ব। জাতীয় অলিম্পিয়াডে প্রাইমারি ক্যাটাগরি ২ ঘণ্টা, জুনিয়র ও সেকেন্ডারি ৩ ঘণ্টা এবং সেকেন্ডারি ও হায়ার সেকেন্ডারি ৪ ঘণ্টার লিখিত পরীক্ষা দিতে হবে।

বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড বা উৎসবে কারা অংশগ্রহণ করতে পারবে?
উত্তর: চারটি ক্যাটাগরিতে গণিত অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে।
ক. প্রাইমারি: তৃতীয় থেকে পঞ্চম শ্রেণি বা সমমান এবং স্ট্যান্ডার্ড-৩ থেকে স্ট্যান্ডার্ড-৫।
খ. জুনিয়র: ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি বা সমমান এবং স্ট্যান্ডার্ড-৬ থেকে স্ট্যান্ডার্ড-৮।
গ. সেকেন্ডারি: নবম, দশম শ্রেণি ও এসএসসি পরীক্ষার্থী বা সমমান এবং ও–লেভেল এবং ও–লেভেল পরীক্ষার্থী।
ঘ. হায়ার সেকেন্ডারি: একাদশ, দ্বাদশ শ্রেণি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী বা সমমান এবং এ–লেভেল এবং ও-লেভেল পরীক্ষার্থী।

বাংলাদেশ গণিত উৎসবে কীভাবে অংশ নিতে হয়?
উত্তর: বাছাই অলিম্পিয়াডে অংশ নেওয়ার জন্য নিকটস্থ প্রথম আলোর অফিসে বা নির্ধারিত ঠিকানায় গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হয়। রেজিস্ট্রেশন করার তারিখ, স্থান বেশ কয়েক দিন আগে থেকেই প্রথম আলো পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়। তা ছাড়া বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের ওয়েবসাইট ( https://www.matholympiad.org.bd), ফেসবুক পেজ https://facebook.com/BdMOC, ফেসবুক গ্রুপে (https://facebook.com/groups/BdMOC) এ তথ্য পাওয়া যায়। ব্যক্তিগত পর্যায়ে যে কেউ অংশ নিতে পারবে। তবে রেজিস্ট্রেশন করার সময় শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচয়পত্র, বেতনের রসিদ, ফলাফলের বিবরণী কিংবা এসএসসি পরীক্ষার প্রবেশপত্র—যেকোনো একটি প্রমাণ হিসেবে দেখাতে হবে।

উৎসব কখন, কোথায় হয়? এর খোঁজ কীভাবে পাব?
উত্তর: উৎসব সাধারণত ডিসেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত হয়। তবে কোনো অনিবার্য কারণে তা একটু এদিক–সেদিক হতে পারে। উৎসবগুলো হয় বিভিন্ন বিদ্যালয় বা কলেজে। কবে, কোথায়, কোন জেলার বা অঞ্চলের অলিম্পয়াড বা উৎসব হবে তা বেশ কয়েক দিন আগে থেকেই প্রথম আলোয় বিজ্ঞাপন দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়। তা ছাড়া বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের ওয়েবসাইট (https://www.matholympiad.org.bd), ফেসবুক পেজ https://facebook.com/BdMOC, ফেসবুক গ্রুপে (https://facebook.com/groups/BdMOC) এ তথ্য পাওয়া যায়।

গণিত অলিম্পিয়াডের প্রশ্নের সিলেবাস কী, কোথা থেকে আসে?
উত্তর: গণিত অলিম্পিয়াডের বাঁধাধরা কোনো সিলেবাস নেই। বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের কী ধরনের সমস্যার সমাধান করতে পারা উচিত তা মাথায় রেখেই প্রশ্ন করা হয়। বিগত বছরের প্রশ্ন দেখলে সিলেবাস নিয়ে ভালো ধারণা হবে। সমস্যাগুলোকে মূলত কয়েকটি ভাগে ভাগ করা যায়: জ্যামিতি, বীজগণিত, সংখ্যাতত্ত্ব, গণনাতত্ত্ব।

নমুনা প্রশ্ন কোথায় পাব?
উত্তর: উৎসবের পরীক্ষা অংশের জন্য বিগত বছরের প্রশ্ন বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের ওয়াবসাইটে দেওয়া আছে। সেসব প্রশ্নকে নমুনা প্রশ্ন হিসেবে নেওয়া যাবে। লিঙ্ক: https://www.matholympiad.org.bd/resources/all-questions

কীভাবে প্রস্তুতি নিতে পারি?
উত্তর: গণিত উৎসবে ভালো করার জন্য সবার আগে নিজ শ্রেণির গণিত বইয়ের ওপর ভালো দখল থাকা প্রয়োজন। নিজ বইয়ের ওপর দখল আনার পাশাপাশি বিগত বছরের সমস্যা সমাধান করে গণিত উৎসবের সমস্যার সঙ্গে পরিচিত হওয়াও গুরুত্বপূর্ণ। গণিত উৎসবের বিভিন্ন ধাপে ভালো করার জন্য কীভাবে প্রস্তুতি নিতে হয় তা নিয়ে আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের বাংলাদেশ দলের সদস্য তারিক আদনান মুন এবং আদীব হাসানের বিস্তারিত লিখে রেখেছে, সেসব দেখা যেতে পারে।
তারিক আদনান মুনের লেখার তালিকা: http://www.kmcbd.org/Home/documents
আদীব হাসানের নোট: adib-hasan.net/pdfs/adibOlympiadPrep.pdf

গণিত অলিম্পিয়াডকে উদ্দেশ করে লেখা বই কোথায় পাব?
বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের ওয়েবসাইটে এ–বিষয়ক বইয়ের তালিকা দেওয়া আছে। লিঙ্ক: https://www.matholympiad.org.bd/resources/math-related-book-list

বিগত বছরের প্রশ্ন দেখে আসলে কি কমন পাব?
গণিত উৎসবে প্রতিবছর নতুন সমস্যা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়, সে জন্য বিগত বছরের সমস্যা থেকে কমন আসার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তবে, এ থেকে একটি প্রশ্নের ধারণা পাওয়া যাবে।

একের বেশি অঞ্চল থেকে অংশ নিতে পারব?
উত্তর: না, পারবে না। যে জেলার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়ছ, সেই জেলার বাছাই অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করতে হবে। কেউ যদি অন্য জেলায় গিয়ে অলিম্পয়াডে অংশগ্রহণ করে এবং সেটা যদি প্রমাণ হয়। সে ক্ষেত্রে ওই শিক্ষার্থীর অলিম্পিয়াড–সংক্রান্ত সব কার্যক্রম বাতিল করা হবে।

কয়টি সমস্যার সমাধান করতে দেওয়া হয়?
উত্তর: বাছাই অলিম্পিয়াডে ৭-৮টি, আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডে ৮-১০টি সমস্যা। জাতীয় অলিম্পিয়াডে সংখ্যা অনির্দিষ্ট, তবে ১০–এর আশপাশে।

প্রশ্ন কি বাংলা ও ইংরেজি দুই মাধ্যমে থাকে?
উত্তর: হ্যাঁ, প্রশ্ন বাংলা ও ইংরেজি দুভাবেই থাকে। দুভাবে উত্তর দিতে পারবে।

অলিম্পিয়াডের সময় কতক্ষণ?
উত্তর: বাছাই অলিম্পিয়াড সব ক্যাটাগরির জন্য ১ ঘণ্টা, আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডে সব ক্যাটাগরির সময় ১ ঘণ্টা ১৬ মিনিট। জাতীয় অলিম্পিয়াডে প্রাইমারি ক্যাটাগরি ২ ঘণ্টা, জুনিয়র ও সেকেন্ডারি ৩ ঘণ্টা এবং সেকেন্ডারি ও হায়ার সেকেন্ডারি ৪ ঘণ্টা।

প্রশ্নের মানবণ্টন কেমন?
উত্তর: বাছাই ও আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডে সব প্রশ্নের মান সমান। জাতীয় অলিম্পিয়াডে প্রশ্নের মান পাশে উল্লেখ থাকে।

গণিত অলিম্পিয়াডের উত্তরপত্রে কীভাবে উত্তর করতে হয়?
উত্তর: বাছাই ও আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডে একটি সংখ্যায় বা এককথায় উত্তর দেওয়া সম্ভব এমন সমস্যা দেওয়া হয়। প্রশ্নপত্রে প্রশ্নের পাশে বক্স থাকে। সেখানে উত্তর লিখতে হয়। সঙ্গে খসড়ার জন্য কাগজ দেওয়া হয়। সেখানে খসড়া করতে হয়। জাতীয় অলিম্পিয়াডে সব সমস্যার বিস্তারিত সমাধান করতে হয়।

খসড়া করা কি জরুরি?
উত্তর: বাছাই ও আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডে খসড়া করা জরুরি। কেননা এ খসড়া অলিম্পিয়াডের উত্তরপত্র মূল্যায়নে অনেক বড় ভূমিকা রাখে।

গণিত অলিম্পিয়াডে বিজয়ীরা কী পায়?
উত্তর: বাছাই অলিম্পিয়াডের বিজয়ীরা আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণের সুযোগ পাবে। আঞ্চলিক অলিম্পয়াডে অংশগ্রহণ করলে তাকে সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডে বিজয়ীরা টি–শার্ট, সনদ ও মেডেল পায়। জাতীয় অলিম্পিয়াডে সনদপত্র, মেডেল, ক্রেস্ট ছাড়াও বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রাইজমানি রয়েছে।

ক্যাম্পে কীভাবে অংশ নিতে পারি?
উত্তর: মূলত জাতীয় উৎসবের সেরা ফলাফল অর্জনকারীদের নিয়ে জাতীয় গণিত ক্যাম্প করা হয়। এই ক্যাম্প ছাড়াও বিভিন্ন সময় আবাসিক/অনাবাসিক ক্যাম্প হয়। বাছাই বা আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডের ভালো ফলাফলকারীদের এই ক্যাম্পে আমন্ত্রণ জানানো হয়। নির্বাচিতদের বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি ফোন, চিঠি বা মেইলের মাধ্যমে জানানো হয়।

Bangladesh Mathematical Olympiad Committee Logo
Bangladesh Mathematical Olympiad Committee is the organization who organizes the Math Olympiad each year across the country with the support form Dutch Bangla Bank & Prothom Alo.
© 2019, Bangladesh Mathematical Olympiad Committee

Quick Links

Contact Info

+880-2-8180078-81 Ex-2128
info@matholympiad.org.bd

Build With by Nasir Khan Saikat
Theme by JoomShaper

Search