মুনির হাসান, সান্তা মার্তা (কলম্বিয়া) থেকে |  জুলাই ২৩, ২০১৩

শুরু হলো বিশ্বের প্রাক্-বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়াদের সবচেয়ে আকর্ষণীয় মেধার লড়াই আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াড (আইএমও) ২০১৩। গতকাল সোমবার বাংলাদেশ সময় রাত নয়টার দিকে কলম্বিয়ার বিরানকিউলাস শহরে শুরু হয় এর আনুষ্ঠানিকতা।
অলিম্পিয়াডের ৫৪তম এ আসরে অংশ নিচ্ছে ১০৩টি দেশের পাঁচ শতাধিক খুদে গণিতবিদ। দুই দিনের প্রতিযোগিতা শুরু হবে আজ থেকে। প্রতিযোগীদের সাড়ে চার ঘণ্টায় তিনটি গাণিতিক সমস্যার সমাধান করতে হবে।
আইএমওতে নবমবারের মতো অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশের গণিত দল। আইএমওর নিয়মানুসারে গতকাল নিজ নিজ দেশের দলনেতাদের সঙ্গে প্রতিযোগীদের ‘চোখের দেখা’ হয়েছে। বাংলাদেশ দলের দলনেতা মাহবুব আলম মজুমদার হাত নেড়ে তার দলের গণিতবিদদের শুভেচ্ছা জানায়। নিয়ম অনুযায়ী, তিনি ১৮ জুলাই থেকে অন্য দলনেতাদের সঙ্গে ‘অজ্ঞাতবাসে’ রয়েছে। ইতিমধ্যে তারা মূল প্রতিযোগিতার জন্য সমস্যা নির্বাচনও করেছে।
বাংলাদেশ দলের চার খুদে গণিতবিদ হলো ঢাকা কলেজের সৌরভ দাশ ও নূর মোহাম্মদ সফিউল্লাহ, ময়মনসিংহ আনন্দ মোহন কলেজের মো. জাহিদুল হাসান এবং ময়মনসিংহ জিলা স্কুলের আদীব হাসান।
গত রোববার সকাল থেকে বিভিন্ন দেশের গণিতবিদেরা সান্তা মার্তা শহরে উপস্থিত হয়। সান্তা মার্তার সমুদ্রতীরবর্তী রিসোর্ট ইরোটামায় সব দেশের প্রতিযোগীরা অবস্থান করছে। আজ পরীক্ষা শুরু হওয়া পর্যন্ত উপদলনেতারা সেখানেই অবস্থান করবে। এরপর তারা নগরের অন্য প্রান্তের একটি হোটেলে দলনেতাদের সঙ্গে যোগ দেবে উত্তরপত্র মূল্যায়নের কাজে।
আকাশপথে দীর্ঘ যাত্রা শেষ করে বাংলাদেশ দলের সদস্যরা বিশ্রামও নিয়েছে। মেজাজ বেশ ফুরফুরে। এখন কলম্বিয়ায় গরম কাল। তাপমাত্রাও প্রায় আমাদের দেশের মতোই। সান্তা মার্তা সমুদ্রতীরবর্তী শহর বলে এর তাপমাত্রা একটু বেশি।
ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং প্রথম আলোর ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি সারা দেশ থেকে ১৭টি আঞ্চলিক অলিম্পিয়াডের ২২ হাজার শিক্ষার্থীর মধ্য থেকে চারজন প্রতিযোগীকে লাল-সবুজের পতাকা বহনের জন্য নির্বাচন করেছে।