ঘন কুয়াশার সঙ্গে ঝিরিঝিরি হিমেল বাতাস। শীতটাও তাই জেঁকে বসেছে। কিন্তু গণিত জয়ের স্বপ্ন নিয়ে আসা শিক্ষার্থীদের কাছে তা কিছুই নয়। উৎসব শুরু হওয়ার আগেই দলে দলে হাজির খুলনা নগরের সরকারি করোনেশন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের মাঠে। আজ শুক্রবার এখানেই গণিত উৎসবের খুলনার আঞ্চলিক পর্যায়ের অনুষ্ঠান।

এ গণিত উৎসবের আয়োজক বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি। উৎসবে পৃষ্ঠপোষক ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড আর সার্বিক ব্যবস্থপনায় প্রথম আলো। ১৩তম এ গণিত উৎসবের স্লোগান ‘গণিত শেখো, স্বপ্ন দেখো’।

আজ শুক্রবার সকাল নয়টায় করোনেশন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা লায়লা আরজুমান গণিত উৎসবের উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে খুলনা, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট জেলার প্রায় ৬০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ৯৫০ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করছে। প্রাথমিক, নিম্ন মাধ্যমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক—এই চার বিভাগে ভাগ হয়ে শিক্ষার্থীরা গণিত প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে।

বক্তৃতায় লায়লা আরজুমান বলেন, ‘আমাদের শিক্ষার্থীদের মধ্যে এখন আর গণিতভীতি নেই। গণিত মাধ্যমে আমাদের বিশ্বকে জয় করতে হবে। গণিত জয়ের মধ্য দিয়ে বিদেশের মাটিতে দেশের সুনাম ছড়িয়ে পড়বে।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর শিবেন্দ্র শেখর শিকদার, গণিত বিভাগের শিক্ষক মো.আলহ্বাজ উদ্দীন, হারুনুর রশিদ প্রমুখ।